শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৪৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
আমরা দশ বছর আগে কিন্তু অর্থনৈতিকভাবে এত স্বাবলম্বী ছিলামনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শাসন অবস্থাতে আমরা কিন্তু অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয়েছি কুড়িগ্রামে ৫ম দফা বন্যার পরিস্থিতি ধরলার পানি বিপৎসীমার ওপরে  অর্ধ লক্ষাধিকের বেশি মানুষ পানিবন্দি এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে গণধর্ষণ। টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে ইউজিসি সদস্যদের শ্রদ্ধা নিবেদন কুড়িগ্রামে বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস পালিত জেলা প্রশাসনের নির্দেশনা উপেক্ষিত চুকনগরে ইটভাটা জবর দখলের পর মালিককে প্রাণনাশের হুমকী। বোয়ালমারীতে কবি নাজমুল হক নজীরের ৬৬ তম জন্মবার্ষিকী পালিত বানিয়াচংয়ে অনলাইন ভিডিও কন্টেন্টে আমবাগান উচ্চ বিদ্যালয় সেরা বিয়ানীবাজার প্রেসক্লাব নির্বাচন সম্পূর্ণ, সভাপতি সজীব, সম্পাদক মিলাদ। নির্বাচনী উত্তাল হাওয়া বইছে অচিন্তপুর ইউনিয়নে

ইউএনওর ওপর হামলা গ্রেফতার : দুজনই যুবলীগের ।

দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি নয়নঃ

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) সরকারি বাসভবনে প্রবেশ করে ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবাকে গুরুতর জখম করার অভিযোগে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

হাকিমপুর, বিরামপুর ও ঘোড়াঘাট থানা পুলিশ এবং র‌্যাব রংপুর-১৩ এর একটি দল যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে শুক্রবার ভোর ৪টা ৫০ মিনিটের দিকে হিলির কালিগঞ্জ এলাকায় বোনের বাড়ি থেকে আসাদুল ইসলামকে এবং জাহাঙ্গীর আলমকে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। তাদেরকে রংপুরে র‌্যাব-১৩ এর কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। গ্রেফতার জাহাঙ্গীর আলম (৪২) উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এবং আসাদুল ইসলাম (৩৫) উপজেলা যুবলীগের সদস্য।

জানা গেছে, জাহাঙ্গীর আলম ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এবং আসাদুল ইসলাম আহ্বায়ক কমিটির সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজী, চাঁদাবাজীসহ বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে।

হাকিমপুর থানার ওসি ফেরদৌস ওয়াহিদ জানান, আসাদুল ইসলাম ঘোড়াঘাট উপজেলার সাগরপুর গ্রামের এমদাদুল হকের ছেলে।

অপরদিকে জাহাঙ্গীর আলম ঘোড়াঘাট উপজেলা রানি গঞ্জের আবুল কালামের ছেলে বলে জানিয়েছেন ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরু ইসলাম।

আরও জানা যায়, জাহাঙ্গীর আলম ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ছিলেন। ২০১৭ সালে কমিটি ভেঙে দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটিতে জাহাঙ্গীর আলম আহ্বায়ক হন।
পুলিশ জানায়, বুধবার দিবাগত রাত তিনটায় দুষ্কৃতকারীরা ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনে প্রবেশ করে। হত্যার উদ্দেশ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও তার বাবা ওমর আলীকে কুপিয়ে ও হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে গুরুতর জখম করে।

এ ঘটনায় বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) জাকির হোসেনকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- রংপুর ডিআইজির একজন প্রতিনিধি এবং দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আসিফ মাহমুদ।

এর পূর্বে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম (৩৫) ও তার বাবা ওমর আলীকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় নৈশ্যপ্রহরী পলাশকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নিয়েছিলো গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

দিনাজপুর গোয়েন্দা পুলিশের ওসি ইমাম আবু জাফর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এছাড়া হামলার ঘটনায় ওয়াহিদা খানমের ভাই শেখ ফরিদ বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে ঘোড়াঘাট থানায় একটি মামলা করেছেন।

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017 আজকের তাজা খবর
Design & Developed BY Suhag Rana