শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
আমরা দশ বছর আগে কিন্তু অর্থনৈতিকভাবে এত স্বাবলম্বী ছিলামনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শাসন অবস্থাতে আমরা কিন্তু অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয়েছি কুড়িগ্রামে ৫ম দফা বন্যার পরিস্থিতি ধরলার পানি বিপৎসীমার ওপরে  অর্ধ লক্ষাধিকের বেশি মানুষ পানিবন্দি এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে গণধর্ষণ। টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে ইউজিসি সদস্যদের শ্রদ্ধা নিবেদন কুড়িগ্রামে বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস পালিত জেলা প্রশাসনের নির্দেশনা উপেক্ষিত চুকনগরে ইটভাটা জবর দখলের পর মালিককে প্রাণনাশের হুমকী। বোয়ালমারীতে কবি নাজমুল হক নজীরের ৬৬ তম জন্মবার্ষিকী পালিত বানিয়াচংয়ে অনলাইন ভিডিও কন্টেন্টে আমবাগান উচ্চ বিদ্যালয় সেরা বিয়ানীবাজার প্রেসক্লাব নির্বাচন সম্পূর্ণ, সভাপতি সজীব, সম্পাদক মিলাদ। নির্বাচনী উত্তাল হাওয়া বইছে অচিন্তপুর ইউনিয়নে

নদী ভাঙন কবলিত কুড়িগ্রামের সারডোব এলাকায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান করলেন জেলা প্রশাসক

আনোয়ার হোসেন,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার নদী ভাঙন কবলিত সারডোব গ্রামের ২ শতাধিক ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহার প্রদান করলেন কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম।
শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে আরডিআরএস বাজারে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে তাদের মাঝে এসব ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে ছিলো চাল, ডাল, তেলসহ বিভিন্ন পণ্য। এ সময় বিনামূল্যে সবজির বীজ ও মাস্ক বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা আব্দুল হাই সরকার, সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মো: জাকির হোসেন, সদর পিআইও খন্দকার মো: মিজানুর রহমান ও হলোখানা ইউপি চেয়ারম্যান উমর ফারুক।
উল্লেখ্য, ধরলা নদীর তীব্র ভাঙনে সদর উপজেলার হলোখানা ইউনিয়নের সারডোব এলাকায় দীর্ঘ সময় ধরে প্রচন্ড নদী ভাঙনের শিকার হন কয়েক শতাধিক মানুষ। বন্যার পানির প্রবল হওয়াতে অনেকের বাড়িঘর ভেসে যায়। নদীর পানি কমে যাওয়ার সাথে সাথে দেখা দেয় নদী ভাঙন।
এছাড়াও জেলা প্রশাসক নদী ভাঙন কবলিত সারডোবের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করে ভাঙা বাঁধ মেরামত, নদীর ভাঙন প্রতিরোধে স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ, গৃহহীন মানুষ ও ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পূণর্বাসনে নানা উদ্যোগ নেয়ার কথা জানান।

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017 আজকের তাজা খবর
Design & Developed BY Suhag Rana