শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১১:৩৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বানিয়াচংয়ে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে দু’পক্ষের ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে নারী-পুরুষসহ আহত ১৫জন।।মুমূর্ষু অবস্থায় একজনকে সিলেট প্রেরন।। বৃক্ষপ্রেম থেকে সফল নার্সারি ব্যবসায়ী, বকুল মিয়ার দুঃখ সংগ্রাম সফলতা ও জীবনের গল্প। আবারো প্রমান মিললো রমজান রাত প্রায় ৩ টা নাগাত ! মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। সাপাহারে পুলিশের উদ্যোগে পথচারীদের মাঝে ইফতার বিতরণ বাংলাদেশে এই প্রথম বৌদ্ধ সমাজে ২০ কোটি টাকা বাজেটে ৫ তলা বিশিষ্ট সংঘ হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্থর বানিয়াচংয়ে বৃদ্ধ‘র মৃত্যু রহস্য ঘিরে ধু্ম্রজালের সৃষ্টি ফুলপুরে দরিদ্র কৃষকের ধান কেটে মানবতার পরিচয় দিল ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। কুড়িগ্রামে কৃষক লীগের ৪৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত “আয়োজন করা হলো অনলাইন সিলেটি কুইজ প্রতিযোগিতা-২.০” সংবাদ সম্মেলন।। গ্রাম্য মাতব্বরদের ইন্ধন,বানিয়াচংয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী আহত। বসতঘর ভেঙ্গে দেওয়ায় খোলা আকাশের নীচে মানবেতর জীবনযাপন।

বানারীপাড়ায় পৈতৃকভিটা ফিরে পাওয়ার দাবিতে সোচ্চার সন্ধ্যা নদীর ভাঙ্গনে হারিয়ে যাওয়া পরিবারগুলো

নাহিদ সরদার বানারীপাড়া প্রতিনিধি: বরিশালের বানারীপাড়ায় পৈতৃকভিটা ফিরে পাওয়ার দাবিতে সোচ্চার হয়েছেন পৌর শহরের ২নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত দক্ষিণ নাজিরপুরবাসী। ঐতিহ্যবাহী দক্ষিণ নাজিরপুর গ্রামটি রাক্ষুসী সন্ধ্যানদী করাল গ্রাসে পতিত হয়ে হারিয়ে গেছে অনেকাংশে। ওই গ্রামের সরকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মসজিদ, ঈদগাহ্, রাস্তাঘাট, ব্রিজ, কালভার্ট, ফসলি জমি, বসতভিটা সবই নদীতে বিলীন হয়েছে। সন্ধ্যানদীর অব্যাহত ভাঙনে সব কিছু হারিয়ে কয়েকশ পরিবার নিঃস্ব হয়ে পড়েছে। সম্পত্তি ক্রয় করে বাড়ি করার যাদের সঙ্গতি নেই তারা অনেকেই গুচ্ছগ্রাম, পৌর শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ড ও খেজুরবাড়ি আবাসনে আবার কেউ কেউ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে বসবাস করছেন। পরিবার-পরিজন নিয়ে রাজধানীসহ বিভিন্ন শহরেও চলে যান অনেকে। যাযাবর জীবনও বেছে নিয়েছেন কেউ কেউ। নদীর তীরে ছাপড়া ঘরে থেকে কোনো একদিন চর জেগে উঠবে এ আশায় বুক বেঁধে আছেন অনেকে। ভাঙনের ধারাবাহিকতায় ২৫/৩০ বছর পূর্বে সম্পূর্ণ ভেঙ্গে যাওয়া এ গ্রামটি আবার জেগে উঠতে শুরু করেছে। মানুষও নতুন করে স্বপ্ন দেখতে থাকে হারানো পৈতৃকভিটা ফিরে পাওয়ার। দু’একজন বালি ভরাট করে ঘর নির্মাণের প্রস্তুতিও নেয়। কিন্তু হঠাৎ করে উপজেলা ভূমি অফিস ওই সম্পত্তির খাজনা নেওয়া ও বালি ভরাট বন্ধ করে দেওয়ায় তাদের স্বপ্নে ছেদ পড়ে। সন্ধ্যানদীর তীরে জেগে ওঠা বিশাল এ চর খাস সম্পত্তি হয়ে যেতে পারে এ শঙ্কায় পড়েন তারা। অভিযোগ রয়েছে ওই সম্পত্তি খাস করে একদল ভূমিদস্যু ডিসিআর নিয়ে ভোগ দখলের পাঁয়তারা করছেন। বুধবার (৭ অক্টোবর) বুধবার সন্ধ্যায় নদী ভাঙনের শিকার পরিবারগুলো বানারীপাড়া প্রেস ক্লাবে এসে তাদের পৈতৃক ভিটেমাটি ফিরে পেতে সাংবাদিকদের সহায়তা কামনা করেন। এ বিষয়ে তারা স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. শাহে আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ গোলাম ফারুক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ আব্দুল্লাহ্ সাদীদের কাছে স্মারকলিপি দেবেন বলেও জানান। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক সহকারী কমান্ডার ও ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মীর সাইদুর রহমান শাহজাহান, সৈয়দ বজলুল হক কলেজের সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আলমগীর হোসেন তালুকদার, সহকারী অধ্যাপক আলহাজ এম. এ. কাইয়ুম আকন, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইউনুস মিয়া, ২নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর রফিকুল আলম, ব্যবসায়ী রবীন্দ্রনাথ দেবনাথ (রবি), রুহুল আমিন বেপারী, বাচ্চু বেপারী, বাবুল বেপারী, আনোয়ার হোসেন, শেখ নুরুল ইসলাম, পৌর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মাহফুজুল হক মাসুম, মুহুরী ইউনুস বেপারী, যুবলীগ নেতা বাচ্চু বেপারী প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বানারীপাড়া প্রেস ক্লাব সভাপতি রাহাদ সুমন, সহসভাপতি প্রভাষক মামুন আহমেদ, ইলিয়াস শেখ, সাধারণ সম্পাদক সুজন মোল্লা, যুগ্ম সম্পাদক ফয়েজ আহম্মেদ শাওন প্রমুখ।

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017 আজকের তাজা খবর
Design & Developed BY Suhag Rana