শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১১:৫০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বানিয়াচংয়ে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে দু’পক্ষের ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে নারী-পুরুষসহ আহত ১৫জন।।মুমূর্ষু অবস্থায় একজনকে সিলেট প্রেরন।। বৃক্ষপ্রেম থেকে সফল নার্সারি ব্যবসায়ী, বকুল মিয়ার দুঃখ সংগ্রাম সফলতা ও জীবনের গল্প। আবারো প্রমান মিললো রমজান রাত প্রায় ৩ টা নাগাত ! মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। সাপাহারে পুলিশের উদ্যোগে পথচারীদের মাঝে ইফতার বিতরণ বাংলাদেশে এই প্রথম বৌদ্ধ সমাজে ২০ কোটি টাকা বাজেটে ৫ তলা বিশিষ্ট সংঘ হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্থর বানিয়াচংয়ে বৃদ্ধ‘র মৃত্যু রহস্য ঘিরে ধু্ম্রজালের সৃষ্টি ফুলপুরে দরিদ্র কৃষকের ধান কেটে মানবতার পরিচয় দিল ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। কুড়িগ্রামে কৃষক লীগের ৪৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত “আয়োজন করা হলো অনলাইন সিলেটি কুইজ প্রতিযোগিতা-২.০” সংবাদ সম্মেলন।। গ্রাম্য মাতব্বরদের ইন্ধন,বানিয়াচংয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী আহত। বসতঘর ভেঙ্গে দেওয়ায় খোলা আকাশের নীচে মানবেতর জীবনযাপন।

মোটা অংকের রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার! সাপাহারে অবৈধভাবে লাইসেন্স ছাড়াই চলছে ২২ টি স’মিল

নয়ন বাবু, নওগাঁ : নওগাঁর সাপাহারে অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে লাইসেন্স বিহীন স’মিল। উপজেলায় বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে এই ধরণের অবৈধ স’মিল গুলি। যার ফলে জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশের উপর ব্যাপক ভাবে ক্ষতির প্রভাব পড়ছে। স’মিলে কাঠ জোগান দিতে গিয়ে অনেক সময় উজাড় হচ্ছে বন বিভাগের সরকারি গাছ। যার কারনে মোটা অংকের রাজস্ব হারাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। অনুসন্ধ্যানে জানা গেছে, উপজেলায় সদর সহ বিভিন্ন এলাকায় যত্রতত্র ভাবে- এমনকি প্রধান সড়কের কোল ঘেঁসে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে বসানো হয়েছে মোট ২২ টি কাঠ ফাঁড়ার স’মিল। তার মধ্যে একটি স’মিলেরও নেই বৈধ কোন কাগজপত্র। শুধুমাত্র লাইসেন্সের আবেদন করেই বিনা লাইসেন্সে চালানো হচ্ছে এলাকার এই স’মিলগুলি। এছাড়াও প্রধান সড়কের পাশে কাঠের গুঁড়াগুলি ফেলে রাখার ফলে জনদূর্ভোগ চরমে উঠেছে। শুধু তাই নয়, খড়ি কিনতে বা নামাতে আসা গাড়ীগুলো রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকার ফলে যানবহন চলাচলে চরম বিঘ্ন ঘটছে বলে জানান এলাকাবাসীরা। সকাল ৬টা থেকে সন্ধা ৬টা পর্যন্ত স’মিল পরিচালনা করার নিয়ম থাকলেও কেউ কেউ রাতের আঁধারে কাঠ ফাঁড়ছেন বলে অভিযোগ করছে সচেতন মহল। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা বন কর্মকর্তা আব্দুল বারী’র সাথে কথা হলে তিনি জানান, উপজেলাতে মোট ২২টি স’মিল আছে । যার মধ্যে ১৫ থেকে ১৭ টির নামে মামলা চলমান রয়েছে। বাঁকী যে কয়টি রয়েছে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশনা সাপেক্ষে তাদের স’মিল সিলগালা করার জন্য প্রস্তুতি চলছে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) কল্যাণ চৌধুরী বলেন, আমরা অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিভিন্ন সময় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে থাকি তবে তাদের বিষয়ে আইনী প্রক্রিয়ায় ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও ইউএনও কল্যাণ চৌধুরী বলেন।

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017 আজকের তাজা খবর
Design & Developed BY Suhag Rana