শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১১:১৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বানিয়াচংয়ে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে দু’পক্ষের ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে নারী-পুরুষসহ আহত ১৫জন।।মুমূর্ষু অবস্থায় একজনকে সিলেট প্রেরন।। বৃক্ষপ্রেম থেকে সফল নার্সারি ব্যবসায়ী, বকুল মিয়ার দুঃখ সংগ্রাম সফলতা ও জীবনের গল্প। আবারো প্রমান মিললো রমজান রাত প্রায় ৩ টা নাগাত ! মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। সাপাহারে পুলিশের উদ্যোগে পথচারীদের মাঝে ইফতার বিতরণ বাংলাদেশে এই প্রথম বৌদ্ধ সমাজে ২০ কোটি টাকা বাজেটে ৫ তলা বিশিষ্ট সংঘ হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্থর বানিয়াচংয়ে বৃদ্ধ‘র মৃত্যু রহস্য ঘিরে ধু্ম্রজালের সৃষ্টি ফুলপুরে দরিদ্র কৃষকের ধান কেটে মানবতার পরিচয় দিল ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। কুড়িগ্রামে কৃষক লীগের ৪৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত “আয়োজন করা হলো অনলাইন সিলেটি কুইজ প্রতিযোগিতা-২.০” সংবাদ সম্মেলন।। গ্রাম্য মাতব্বরদের ইন্ধন,বানিয়াচংয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী আহত। বসতঘর ভেঙ্গে দেওয়ায় খোলা আকাশের নীচে মানবেতর জীবনযাপন।

শিক্ষক দ্বারা শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলা থেকে রক্ষা পেতে বিয়ে ! পরবর্তিতে তালাক এর নোটিশ ।

দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি নয়ন জানান ॥ শিক্ষক দ্বারা শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলা থেকে রক্ষা পেতে বিয়ে পরবর্তীতে ৭ লক্ষ টাকা যৌতুক এর দাবি যৌতুক দিতে না পারায় মেয়েকে স্বামীর বাড়ীতে পাঠাতে পারেনি পিতা পরবর্তিতে তালাক এর নোটিশ এমনই ঘটনা ঘটেছে দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলায় ।

অবশেষে যৌতুকের দাবীতে ময়েকে নির্যাতনের অভিযোগ এনে ফুলবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

ফুলবাড়ী উপজেলার আখিঁঘোটনা গ্রামের এক পিতা গত ২৬ ফেব্রুয়ারী ফুলবাড়ী থানায় যৌতুকের দাবীতে মেয়েকে নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামলা করেছেন। মামলা নং ২১, ধারা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০এর ১১(গ)/৩০ ।

মামলায় মেয়ের পিতা মোঃআবদুর রশিদ মন্ডল উল্লেখ করেছেন, দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার গঙ্গাদাশপুর গ্রামের মোঃ খবির উদ্দিনের ছেলে দেশমা দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক মোঃ আবুল কালাম আজাদ (৩৬) এর কাছে বাদীর নাবালিকা মেয়ে প্রাইভেট পড়ত।

এ সময় সে তার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলে । পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে গেলে শিক্ষক মোঃ আবুল কালাম আজাদের পরিবারের সদস্যরা বিয়ের প্রস্তাব দেন।

সে সময় সামাজিকতা ও পারিপার্শ্বিকতার কথা বিবেচনা করে গত ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০ ইং তারিখে মেয়েকে তার সঙ্গে বিয়ে দেন।

বিয়েতে ৩ লাখ ৯৯ হাজার ৯৯৯ টাকা দেনমহর ধার্য্য করা হয়। বিয়েতে উপটৌকন নগদ ২ লক্ষ টাকা ও আসবাবপত্র প্রদান করেন। এরপরও মেয়েকে তারা নিয়ে যায়নি।

পরে মেয়েকে নিয়ে যাওয়ার কথা বললে তারা ৭ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করেন। এ নিয়ে গত ১৫ জানুয়ারী ২০২১ ইং তারিখে বাদীর বাসায় আলোচনায় বসে আবারো ৭ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করেন।

একই সঙ্গে তারা জানায় ৭ লক্ষ টাকা যৌতুক না দিলে তারা মেয়েকে নিয়ে যাবেননা।

এই ঘটনায় মেয়ের পিতা মেয়ের স্বামী শিক্ষক মোঃ আবুল কালাম আজাদ, তার পিতা খবির উদ্দিন (৬৫),মা মোছাঃ মজিরন বেগম(৫৮), মেয়ের ভাসুর মজিবর রহমান, লুৎফর রহমান ও জা সেলিনা বেগমের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০এর ১১(গ)/৩০ ধারায় মামলা দায়ের করেছেন।এ বিষয়ে মেয়ের পরিবার শুষ্ঠ বিচারের দাবি জানান ।

সংবাদটি ফেসবুকে শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017 আজকের তাজা খবর
Design & Developed BY Suhag Rana